শিরোনাম
জুমার মিম্বার থেকে বাবুনগরী : আল্লাহ ফেরআউনকেও সুযোগ দিয়েছেন, তবে ছেড়ে দেননি আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার নিয়ে ভারতের উদ্বেগ মসজিদ-মাদ্রাসা উন্মুক্ত রাখার আহ্বান জানিয়ে মুফতি আজম আবদুচ্ছালাম চাটগামীর খোলা চিঠি রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে হেফাজত আমীর আল্লামা বাবুনগরীর আহ্বান গ্রেফতার আতঙ্কে ঘর ছাড়া হাজারো আলেম, দুর্ভোগে পরিবার মসজিদ লক করার ইখতিয়ার কারো নেই : মুফতি সাখাওয়াত চিকিৎসা বিজ্ঞান মতে রোজার অতুলনীয় উপকার, বিবিসির প্রতিবেদন পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখা গিয়েছে, কাল রোজা ইসলামাবাদীসহ গ্রেফতারকৃত হেফাজত নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে হবে : আমীরে হেফাজত  আল্লামা শফীর ইনতিকাল স্বাভাবিক, পিবিআইয়ের রিপোর্ট উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যাচার : হেফাজত আমির
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৪:১৮ অপরাহ্ন
add

ছাত্র নির্যাতনের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ উলামায়ে কেরাম, ফেসবুকে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ

কওমি ভিশন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১
add

গতকাল ৯ মার্চ মঙ্গলবার হাটহাজারী উপজেলার কনক কমিউনিটি সেন্টার ও পশু হাসপাতালের পিছনে কামাল পাড়া মারকাযুল কোরআন ইসলামিক একাডেমিতে এক শিশু শিক্ষার্থীকে শিক্ষকের অমানুষিক নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে উলামায়ে কেরাম ও বিশিষ্টজন তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
বিশিষ্ট লেখক, ইসলামী চিন্তাবিদ, ইবনে খালদুন ইনস্টিটিউট -এর পরিচালক মাওলানা লাবিব আবদুল্লাহ বলেন,
অমানুষরা নাবালেগ তালেবে ইলমকে প্রহার করে৷ তারা প্রকত মানুষই নয়; শিক্ষক তো দূর কি বাত৷ মাদরাসা নববী আদর্শে পরিচালিত হবে৷ নবীজি মুআল্লিম ছিলেন৷ নবীজির শিক্ষার নানা মেথড নিয়ে পড়ালেখা করেছি কিন্তু প্রহারের কোনো নজির পাই নি এখনও৷আদর সোহাগ, মমতা স্নেহ ছিলো নবীজির শিক্ষা পদ্ধতিতে৷ ছিলো নানা কৌশল৷ মাদরাসা শিক্ষায় প্রহার কেন কীভাবে প্রবেশ করলো তা গবেষণার বিষয়৷ তাও আবার শিশুদের প্রহার করা৷ উস্তাজ কেন তালেবে ইলমকে আপন সন্তান মনে করে না? কেন সন্তানের মতো আদর সোহাগ করতে পারে না? যদি না পারে সে আলু পটলের ব্যবসা করবে পড়াতে আসবে কেন? কেন শিক্ষকতা করবে? মিডিয়ার এই যুগে একটি ছোট ঘটনা প্রচারিত হয় দেশজুড়ে৷ বিশ্বজুড়ে৷ এমনিতেই মাদরাসা শিক্ষা নিয়ে নানা সমালোচনা৷ নানা মিথ্যা অভিযোগ৷ দেশী বিদেশী নানা এজেন্ডা মাদরাসা নিয়ে৷
তরুণ আলেম, লেখক, অনুবাদ, ইতিহাসবিদ মাওলানা ইমরান রাইহন বলেন,
এদেশের বড় আলেমদের সাথে কথা বললে দেখবেন তারা এক নির্মল তরবিয়তি পরিবেশ থেকে উঠে এসেছেন, কোনো জল্লাদের কসাইখানা থেকে নয়। এমন চাবুকপেটার ফলে যে অপরাধের চক্র চলা শুরু করে, দিনশেষে আজকের ছাত্র আগামি দিনের উস্তাদও সেই চক্রের সদস্য হয়ে ওঠে। একজন তালিবুল ইলম যে তালিবুল ইলম তাকে এই অনুভব করতে দেয়া সবচেয়ে জরুরী। আদিব হুজুরের ছাত্র মজলিসের বয়ানগুলো পড়ুন, উনার আবেগ দেখুন। উনার মাদরাসার পরিচালনা পদ্ধতী দেখুন। এটাই একজন আদর্শ শিক্ষকের কর্মপন্থা।
আমি মনে করি প্রহার করার অধিকার সেই উস্তাদের আছে যিনি ছাত্রকে প্রহার করার পর জায়নামাজে বসে তার জন্য কান্নাও করতে পারেন। যিনি বেত্রাঘাতের সময় সেই বেতের আঘাত নিজের শরিরেও অনুভব করেন। আমার এক উস্তাদ একদিন আমাকে দুই বেত্রাঘাত করে দীর্ঘসময় কান্না করেছিলেন জায়নামাজে৷ যার ভেতর এই মমতা আছে তিনি প্রহার করতে পারেন। আর তিনি প্রহার করলে এমন জানোয়ারের মত প্রহার করবেন না এটাও জানা কথা৷
লেখক ও সবারখবর পত্রিকার সম্পাদক মাওলানা আবদুল গাফফার বলেন,
একতরফা শিক্ষককে দায়ী করাটা মহাঅন্যায়। হিফজ- মক্তব বিভাগে যারা শিক্ষকতা করেন অথবা যারা কিতাব বিভাগে পড়ান, কর্মক্ষেত্রে যোগদানের পূর্বে তাদের জন্য বাধ্যতামূলক কোনো প্রশিক্ষণ কেন্দ্র আছে কি না? সেটা ভেবে না দেখে শুধুমাত্র শিক্ষককে দায়ী করাটা কতটা যুক্তিযুক্ত? অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেরই শিক্ষকরা পড়ানোর প্রশিক্ষণ নেন না। নিজের প্রতিষ্ঠানকে ‘সুনাম’ এনে দিতে গিয়ে অবলম্বন করেন প্রহারের পথ। অথবা নিজের ‘উগ্র মেজাজ’এর বহিঃপ্রকাশ ঘটান নিরীহ ছাত্রদের উপর।
এখন যে পরিমাণ ছাত্রদের প্রহার করা হয় এর পূর্বে দশগুণ ছাত্রদের বেশি প্রহার করা হতো। কিন্তু মিডিয়ার কল্যাণে এখন অজপাড়াগাঁয়ের একটি ঘটনা ছড়িয়ে যাচ্ছে বিশ্বময়। ফলে দুর্নাম হচ্ছে মাদরাসাগুলোর। আমরা সব সময় ঘটনার পর প্রতিকার খুঁজি কিন্তু ঘটনার আগে এর ব্যবস্থা নেই না।

Leave a comment

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: