শিরোনাম
গরিবদের আগে করোনার টিকা দিয়ে সরকার দেখবে মানুষ বাঁচে না মরে: রিজভী সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলো হিজামা হেল্পলাইন কর্তৃক আয়োজিত ফায়ার কাপিং কর্মশালা মিথ্যা মামলা দিয়ে একটি কুচক্রি মহল দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছে মাদরাসায় হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে : আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী  ফটিকছড়িতে কওমি মাদ্রাসায় মাজারপন্থীদের সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানিয়েছেন আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদি হেফাজতের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মনোনীত পুলিশকে গুণ্ডা ও মাস্তানের ভূমিকায় দেখতে চাই না, এসপিকে বরখাস্ত করুন : ইসলামাবাদী মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে হেফাজত ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের সংবাদ সম্মেলন টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজত আল্লামা শফীর মৃত্যুকে ইস্যু করে বরেণ্য আলেমদের বিরুদ্ধে মামলা: নিন্দা জানিয়ে শীর্ষ ২৮ উলামা-মাশায়েখের বিবৃতি
বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৫৭ অপরাহ্ন
add

টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজত

কওমি ভিশন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২০
add

টাইমস অব ইন্ডিয়ায় গত ১৭ ডিসেম্বরে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশে ইসলামপন্থী চরমপন্থার উত্থানে উদ্বিগ্ন ভারত’ শীর্ষক এক রিপোর্টের প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। প্রতিবাদপত্রটি টাইমস অব ইন্ডিয়ার এডিটর-ইন-চীফ বরাবর পাঠানো হয়েছে।

প্রতিবাদপত্রটির অনুবাদ কওমি ভিশনের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।


তারিখ: ২১-১২-২০২০

বরাবর

এডিটর-ইন-চীফ

জনাব জয়দীপ বোস

টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

বিষয়: টাইমস অব ইন্ডিয়ায় ‘বাংলাদেশে ইসলামপন্থী চরমপন্থার উত্থানে উদ্বিগ্ন ভারত’ শীর্ষক প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে হেফাজতে ইসলামের প্রতিবাদপত্র।

 

জনাব বোস,  গত ডিসেম্বর ১৭ তারিখে টাইমস অব ইন্ডিয়ায় ‘বাংলাদেশে ইসলামপন্থী চরমপন্থার উত্থানে উদ্বিগ্ন ভারত’ শীর্ষক প্রকাশিত একটি রিপোর্ট আমাদের নজরে এসেছে। দুঃখের বিষয় হলো, রিপোর্টটি ভিত্তিহীন ও অসত্যে ভরপুর এবং সেইসাথে বিভ্রান্তিকর ও কুতসাপূর্ণ। তাই এই প্রতিবাদপত্র পাঠানো হলো।

বাংলাদেশের বিদ্যমান রাজনীতি ও জনজীবন সম্পর্কে অবহিত এমন যে কারো কাছে শুরুতেই রিপোর্টটিকে মনে হবে যে, এটি উদ্দেশ্যমূলকভাবে লেখা হয়েছে এবং রিপোর্টটিতে বাংলাদেশের সবচে জনপ্রিয় ধর্মীয় প্লাটফর্ম হেফাজতে ইসলাম সম্পর্কে ভুল ধারণা সুস্পষ্ট। সেখানে দুঃজনকভাবে হেফাজতের নতুন নির্বাচিত আমির আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী শেখ মুজিবুর রহমানের মূর্তিসমূহ ভেঙেছেন বলে দাবি করা হয়েছে। এমন উদ্দেশ্যপূর্ণ দাবি কোনোভাবেই সত্য নয় এবং এক্ষেত্রে কোনো বাস্তবভিত্তিক তথ্য বা বিশ্বাসযোগ্য রেফারেন্সও উল্লেখ করা হয়নি সেখানে। যদি এটা সত্য হতো, তাহলে প্রশ্ন আসে, বাংলাদেশের মূলধারার কোনো মিডিয়ায় কেন এমন অভিযোগ আসেনি? অন্যদিকে, বাস্তবতা হলো এর সম্পূর্ণ বিপরীত। কারণ, গত ৫ ডিসেম্বর বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলায় শেখ মুজিবুর রহমানের মূর্তি ভাঙার ঘটনার পর হেফাজতের বর্তমান যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক জোরালোভাবে এমন কাজের নিন্দা জানিয়েছেন এবং তিনি একইসাথে শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা ব্যক্ত করেছেন আমাদের স্বাধীনতাযুদ্ধের একজন মহানায়ক হিসেবে এবং একজন গুণবান মুসলিম ব্যক্তিত্ব হিসেবে।

এটা খুবই দুঃখজনক যে, হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে ভুল তথ্য, মিথ্যাচার ও ঘৃণাপূর্ণ প্রপাগান্ডা প্রচারের জন্য আপনার প্রসিদ্ধ সংবাদপত্রকে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমরা জানি, টাইমস অব ইন্ডিয়া ভারতের লিডিং সংবাদপত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম। সে কারণে আমরা আশা করি আপনার পত্রিকাটি রিপোর্টিং ও কভারেজের ক্ষেত্রে আরো পেশাদার, নিরপেক্ষ ও ভারসাম্যপূর্ণ হবে, আস্থা ও বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করবে এবং বাংলাদেশ ও ইন্ডিয়ার মধ্যে একটি পিওপল-টু-পিওপল সম্পর্ক গড়ে ওঠার ক্ষেত্রে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করতে সক্ষম হবে।

হেফাজতে ইসলাম আইন নিজের হাতে তুলে নিয়ে এমন ভাঙচুর সমর্থন করে না এবং অনুমোদনও দেয় না। বরং, আমাদের মতে, এমন ভাঙচুরকে স্যাবোট্যাজ মনে করার যথেষ্ট বাস্তবতা রয়েছে এবং আমাদের ওপর দায় চাপানোর উদ্দেশ্যেই এমন স্যাবোট্যাজ ঘটানো হয় বলে আমরা মনে করি। ইতোমধ্যে কুষ্টিয়ায় আরেকটি মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা মিডিয়ায় এসেছে; আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে তিনজন গ্রেপ্তার হয়েছে বাঘা যতীনের মূর্তি ভাঙার অভিযোগে। এটাও এখন সবার জ্ঞাত যে, গ্রেপ্তারকৃত তিনজনের একজন যুবলীগের নেতা (ডেইলি স্টার, ডিসেম্বর ২০, ২০২০)।

এছাড়া, আপনার উক্ত রিপোর্টটি আমাদের সংগঠনকে ‘চরমপন্থী দল’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে; এমন অমানবিক ভাষা সরাসরি ‌‌’ওয়ার অন টেরর’-এর ভোকাবুলারি থেকে ধার করা হয়েছে। আমরা হেফাজতের জন্য এমন মিসনোমার তথা অনুপযুক্ত পরিভাষা ব্যবহারের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমরা একটি অরাজনৈতিক ও সামাজিক ধর্মীয় সংগঠন। আমরা ইসলামোফোবিয়া এবং উপনিবেশিক আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে লড়াইস্বরূপ শান্তিপূর্ণভাবে জনগণের ঈমান-আকিদা ও নৈতিকতা সংরক্ষণের লক্ষ্যে কাজ করি।

সুতরাং, আপনার উক্ত আপত্তিকর রিপোর্টটির কারণে আমাদের সংগঠনের ইমেজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা চাই আপনার পত্রিকায় আমাদের এই প্রতিবাদপত্রটি সম্পূর্ণ প্রকাশ করে আপনার পাঠকদের মধ্যে আমাদের সংগঠন সম্পর্কে প্রচারিত ভুল ধারণা নিরসন করার অনুরোধ রইলো।

 

নিবেদক

মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী

কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ।


মূল প্রতিবাদপত্র


Date: 21 Dec, 2020

To

Editor-in-Chief

Mr. Jaideep Bose

The Times of India

Subject: Rejoinder to the report titled “Rise of Islamist extremism in Bangladesh worries India” that was published in your esteemed newspaper.

Dear Mr. Bose,

The report titled “Rise of Islamist extremism in Bangladesh worries India” published in the Times of India on December 17, 2020 caught our attention. Sadly, the report is not only full of baseless and inaccurate assertions, but also misleading and slanderous, hence this rejoinder.

On the outset, it would be clear to anyone –informed about the politics and public life of Bangladesh– that this report was written with an ulterior motive and could not hide its prejudice against the most popular civico-religious platform in Bangladesh, i.e., Hefazat-E-Islam. To our great dismay, it was claimed that Allama Junaid Babunagri, the newly elected Chief of Hefazat-E-Islam, ‘vandalized statues of Sheikh Mujibur Rahman’. This motivated claim made in the report is nowhere near true and has no factual basis or any credible reference. If it were the case, one would wonder why such news was not reported in any form in Bangladesh mainstream media. On the contrary, the fact on the ground is quite the opposite. Soon after a statue of Sheikh Mujibur Rahman was vandalized in Kustia district of Bangladesh on December 5, 2020, Mawlana Mamunul Haque, the current joint-secretary of Hefazat-E-Islam condemned the act in the strongest possible way. In addition, he reiterated his respect towards Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman as an illustrious figure in our struggle for liberation and an accomplished Muslim persona.

It’s very unfortunate to see your esteemed newspaper is being used to propagate misinformation, lies and malicious propaganda against Hefazat-E-Islam in Bangladesh. Knowing that the Times of India is one of the leading newspapers in India, we expect it to be more professional, objective and balanced in its reporting and coverage to earn trust and credibility in order to be able to influence a people-to-people relationship between Bangladesh and India in the most positive direction.

Hefazat-E-Islam neither supports nor approves of such vandalism by taking law at hands. Rather, in our opinion, it has ample indication to consider this as an act of sabotage to put blame on us. Reportedly, another such incident of vandalism took place in Kustia a few days ago, with three perpetrators arrested by the law enforcing agencies on the charge of the vandalisation of Bagha Jatin’s bust. It’s quite revealing to know that one of the perpetrators’ identities has been reported in the media to be the leader of Jubo League– a wing of the current ruling party of Bangladesh (The Daily Star, Dec 20, 2020).

In addition, your report labelled our organization as an extremist group. This is the language of dehumanization and directly borrowed from the vocabulary of “war on terror” at work. We are protesting in the strongest possible term against such a misnomer used to vilify Hefazat-E-Islam. We are a nonpolitical civico-religious organization working to safeguard public morality, articles of faith and principles in peaceful ways to fight against colonial domination and Islamophobia.

Therefore, we would like to request you to publish this rejoinder in full to correct the perception of your readers about us which was damaged due to the aforementioned report published in your newspaper.


Sincerely,

Mawlana Azizul Haque Islamabadi

Organisational Secretary (Central)

Hefazat-E-Islam Bangladesh.

Leave a comment

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: