শিরোনাম
আরব-ইসরাইল সম্পর্কের প্রতিবাদে বাহরাইনে বিক্ষোভ চলছেই হাটহাজারীর ছাত্র বিক্ষোভের সমর্থনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবেশের ডাক দিলেন ভিপি নুর হাটহাজারিতে আবারো বিক্ষোভে ছাত্ররা, সব দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত মাঠ না ছাড়ার সিদ্ধান্ত দাবি আদায়ের লক্ষ্যে হাটহাজারী মাদ্রাসার মাঠে শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভকারীদের আনাস মাদানির বহিষ্কারসহ ৫ দফা দাবিতে উত্তাল হাটহাজারী মাদ্রাসা ইহুদিবাদী ইসরাইলের সাথে আরব দেশের সম্পর্ক ফিলিস্তিনি জনগণ মেনে নেবে না সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ৫ মাস ছাড় মুসলিম নির্যাতনের অভিযোগে চীন থেকে পণ্য আমদানি বন্ধ করলো যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য-বিনিয়োগ বৃদ্ধির অঙ্গীকার পূণর্ব্যক্ত করলো তুরস্ক সশস্ত্র লড়াইয়ের মাধ্যমেই কেবল ফিলিস্তিন মুক্ত হবে: হিজবুল্লাহ
শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৫৫ অপরাহ্ন
add

যুগে যুগে বালআম ইবনে বাউরা

কওমি ভিশন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২০ জুলাই, ২০২০
add

আবু জোবায়ের


আলেমগণ নবীদের উত্তরাধিকারী। এই উত্তরাধিকারিত্ব শুধু বাহ্যিক জ্ঞান-বিজ্ঞান ও বিধানাবলী গ্রহণের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়; বরং আত্মিক গুণাবলী ও অভ্যন্তরীণ বৈশিষ্ট্যাবলিও তার অন্তর্ভুক্ত। মূলত, একটি অংশ গ্রহণ আর অপরটি বিবর্জন ত্রুটিপূর্ণ উত্তরাধিকারিত্ব ও অসম্পূর্ণ প্রতিনিধিত্ব ছাড়া কিছুই নয়।

যুগে যুগে যারা নবুওয়াতে মুহাম্মদীর যথার্থ প্রতিনিধিত্ব করেছেন, তারা কখনই একটি মাত্র অংশের ধারক ও বাহক ছিলেন না; তারা উভয় অংশেই সমৃদ্ধ ও সজ্জিত ছিলেন। দূর অতীতের আসহাবে সুফফা থেকে নিকট অতীতের আকাবীরে দেওবন্দ তার উজ্জ্বল প্রমাণ।

বড় দুঃখজনক সত্য হলো, বর্তমান সময়ে সেই উত্তরাধিকারীদের একটি অংশের মধ্যে চরম অধঃপতন শুরু হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ের নানা ঘটনা অনেক প্রসিদ্ধ আল্লামার (!) মধ্যেও যে নবুওয়াতী বৈশিষ্ট্য ও গুণাবলীর চরম সংকট রয়েছে, তা প্রকাশ করে দিয়েছে। ফলে তাঁরা অতীতে বরণীয় ব্যক্তি হলেও বর্তমানে মানুষের ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়েছে।

যার ফল দাঁড়াচ্ছে– গুটিকয়েক আদর্শ বিবর্জিত আল্লামার (!) জন্যে পুরো কওমী অঙ্গনের প্রতি মানুষের আস্থা-বিশ্বাসে চিড় ধরছে। কওমী মাদ্রাসার ঐতিহ্য ও অবদান প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

বিভিন্ন সময়ে ধিকৃত, বিতর্কিত হওয়া, সাম্প্রতিক বরখাস্ত হওয়া ও তদন্তাধীন থাকা আল্লামাদের (!) মধ্যে বেশ কিছু ক্ষেত্রে মিল রয়েছে। যেমন—

• পদের মোহ।
• সম্পদের লোভ।
• কূটনামী।
• স্বার্থপর।
• হিংসা-বিদ্বেষ।
• দুর্নীতিবাজ।
• নির্লজ্জতা।
• সরকার ঘেঁষা।

“আমি ইচ্ছা করলে সে সকল নিদর্শনসমূহের কারণে তার মর্যাদা বাড়িয়ে দিতাম । কিন্তু সে অধঃপতিত এবং নিজের রিপুর অনুগামী হয়ে রইল। তার অবস্থা হলো কুকুরের মত; যদি তাকে তাড়া করা হয় তবুও হাপাবে আর যদি ছেড়ে দেওয়া হয় তবুও হাপাবে।” [সূরা আরাফ: ১৭৬]

এই আয়াতে বনি ইসরাইলের একজন অনুসরণীয় আলেমের পথভ্রষ্টতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ঘটনা বর্ণিত হয়েছে। মূলত তার ঘটনাটি ছিল উত্থানের পর পতনের আর হেদায়াতের পর গোমরাহীর। পূর্ণ জ্ঞান ও মারেফাত হাসিল করার পরও যখন রৈপিক কামনা-বাসনা ও স্বার্থ তার ওপর প্রবল হয়ে যায়, তখন সে জ্ঞান, সম্মান ও  নৈকট্য সবকিছু হারিয়ে বসে। সারা জীবনের জন্য চরম লাঞ্ছনা ও অপদস্থতার মুখোমুখি হয়।

সে যুগের বালআম ইবনে বাউরা ইসমে আ’যম জানত এবং সে এর মাধ্যমে যে দোয়া করত তাই কবুল হত। সে সমাজের প্রভাবশালী লোকের অনুরোধ, স্ত্রীর সন্তুষ্টি কামনা ও সম্পদের মোহে পড়ে মূসা (আ:) এবং বনী ইসরাঈলের বিরুদ্ধে বদ দোয়া করে ফেলে। যার ফল এই দাঁড়ায় যে, তার অপকর্মের শাস্তিস্বরূপ জিহ্বা বেরিয়ে এসে কাঁধের ওপর লটকে যায়। ঠিক কুকুরের মত। কাছের লোকেরাও তাকে দূর! দূর! করতে শুরু করে।

উক্ত আয়াতের তাফসীরে আল্লামা শামছুল হক ফরিদপুরী (রহ:) লিখেছেন,

“হে আমার নবী! আপনি পরবর্তী সমস্ত যুগের, সমস্ত মানুষের চিন্তার খোরাকের জন্য নজীর স্বরুপ ঘটনা বর্ণনা করুন, বুঝিয়ে দেন যে, মানুষ বাহ্যিক দৃষ্টিতে যত বড়ই আলেম, যত বড়ই আবেদ ও পীর হউক না কেন, যদি সে নিজে চেষ্টা ও ইচ্ছা করে তার লোভ ইত্যাদি রিপুকে দমন না করে টাকার লোভী বা স্বার্থপর, সরকার ঘেঁষা হইয়া যায়, তার পরিণাম অত্যন্ত ভয়াবহ হবে। দুনিয়াতেও সে কুত্তার মত সৎ ও শিষ্টদের কাছে দুর! দুর! ছেই! ছেই! ইত্যাদি ঘৃণিত শব্দ ব্যবহারের উপযুক্ত হবে এবং আখেরাতের ভীষণ আযাব তো আছেই।”

এমন অসৎ আলেমদের সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন–

‘উলামায়ে ‘ছু’ অর্থাৎ অসৎ, অর্থলোভী, সরকার ঘেঁষা আলেমদের দ্বারা আমার উম্মতের সর্বনাশা ক্ষতি হইবে, যদি তারা তাদের থেকে সতর্ক না থাকে। উলামায়ে ছু অর্থাৎ অসৎ ও দুষ্ট আলেম তারা, যারা তাদের ইলমের দ্বারা তাদের যামানার সরকার থেকে কিছু টাকা উপার্জনের ব্যবস্থা চালাবে।’ কিন্তু  তিনি বদ দোয়া করে বলেন, তাদের এ ব্যবসায় যেন কখনো বরকত না হয়।”

“যাহারা লোভ, কাম, মিথ্যা, ধোঁকা ইত্যাদি রিপু হইতে পবিত্রতা হাসিল না করে, তাহারা অসৎ আলেম ও অসৎ পীর। অসৎ আলেম ও পীরের থেকে দূরে সরিয়া থাকার জন্য বুযুর্গানে দ্বীনগণও হামেশা সতর্কবাণী দান করিয়াছেন।

মাওলানা রূমী বলেন—

‘অনেক শয়তান মানুষের অর্থাৎ আলেমের বা পীরের ছুরত ধরিয়া দুনিয়াতে বিদ্যমান আছে। অতএব হে মুমিনগণ! সতর্ক থাকিও। হকের মাপকাঠির দ্বারা যাচাই বাছাই করিয়া নিও। সবাইকে পীর বলিয়া, আলেম বলিয়া স্বীকার করিয়া তাহার হাতে হাত মিলাইও না’।”

“হযরত মুজাদ্দিদে আলফেসানি (রহ:) বলিয়াছেন–

‘খাঁটি দ্বীনদার আলেমের সংখ্যা খুবই কম। যাহাদের মধ্যে মালের মহব্বত, নেতৃত্বের, কতৃত্বের মহব্বত, ইজ্জত-সম্মানের মহব্বত এবং পদ-গৌরবের মহব্বত নাই তাহারাই দ্বীনদার আলেম। প্রকৃত নায়েবে নবী। একমাত্র আল্লাহর দ্বীন, নবীর তরীকা জারি করা ব্যতীত তাহাদের নিজেদের ব্যক্তিগত কোনই উদ্দেশ্য থাকে না। কিন্তু উলামায়ে ‘ছু’ যাহারা, তাহাদের উদ্দেশ্য হইবে হুকুমতের পক্ষ সমর্থন করিয়া নিজের মতলব হাসিল করা, কাজেই সতর্ক থাকিতে হইবে।” [অসৎ আলেম ও পীর]

শামছুল হক ফরিদপুরী (রহ:)-এর তাফসির এখন বেশ প্রাসঙ্গিক হয়ে ওঠেছে। এ যুগের বালআম বাউরা অর্থাৎ লোভী, আদর্শ বিবর্জিত ও সরকার ঘেঁষা অনেক অসৎ আল্লামা ও পীরদের মুখোশ উন্মোচিত হয়ে পড়েছে। তারা বহু ধরনের অপকর্ম ও নেতিবাচক কাজে লিপ্ত ছিল, যাতে অবৈধ অর্থ লাভ করতে পারে, কোন পদের অযোগ্য হয়েও তার অধিকারী হতে পারে ইত্যাদি। তাদের এসব অপকর্মের ফলে অনেক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের ভিত দুর্বল হয়ে পড়েছে। চারদিক থেকে তাদের দূর্নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ উঠছে। প্রতিবাদ চলছে।


রাসূলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন–

“আল্লাহ বিশেষ কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর আমলের কারণে সকলকে শাস্তি দেন না। যখন অন্যায় প্রকাশ্যে ঘটতে থাকে আর তারা সেটাকে প্রতিহত করতে সক্ষম হওয়া সত্ত্বেও প্রতিরোধ না করে তখন আল্লাহ বিশেষ, সাধারণ– সবাইকে শাস্তি দেন।” [মুসনাদে আহমাদ, ১৭৭২০]

সুতরাং ধর্মীয় বিষয়ে আমাদের এখনই সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে, আমরা কাদের অনুসরণ করব? আমরা কি অসৎ আলেমদের হাতে আমাদের ঈমান, ইসলাম ও প্রতিষ্ঠানকে ছেড়ে রাখব? আমরা কি কারও অন্ধ ভক্তি, শ্রদ্ধা ও বিশ্বাসকে ব্যক্তিপূজায় রূপ দিব? ইত্যাদি নানান প্রশ্নের উত্তরই নির্ধারণ করে দিবে আগামী দিনে বাংলাদেশে আমাদের, মাদ্রাসার ও ইসলামের ভবিষ্যত।

বিজ্ঞাপন

Leave a comment

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: